virus,windows tips,pc tips,Best PC Software.Speed up PC.Speed up Internet.PC Problem solve,anti virus,pc cleaner


চলুন কথা না বারিয়ে সুরু করি।প্রথম এই  সফটওয়্যার   টা  download করুন। তারপর setup করুন কোন ঝামেলা ছারাই ।তারপর সফটওয়্যার ওপেন করুন এবং পিকচার বার এ ক্লিক করুন। এর পর all to ico এ ক্লিক করুন, তারপর যে বক্স টা আসবে সেখান থেকে add file এ ক্লিক করুন, তারপর আপনার পছন্দ মতো ফটো নির্বাচন করুন ,এর পর ok এবং start বাটান এ ক্লিক করুন,ফাইল টা  ডকুমেন্ট থেকে FFOutput ফাইল পাবেন,সেখান থেকে  একটা ড্রাইভ এ সেভ করুন।তারপর আপনি যে ফোল্ডার এর আইকন পরিবর্তন করতে চান তার রাইট বাতান এ ক্লিক করে প্রপার্টিজ এ যান & customize এ যান , তারপর change icon এ ক্লিক করুন। তারপর browse…. potion এ গিয়ে আপনি যে ফোল্ডার এ আপনার ফটো কনভাট করছেন  সেটা দেখিয়ে দিন। ok , apply , ok
Advertisements

আপনার পিসি তে কি ভাইরাস আক্রমন করেছে ,আর তার ফলে আপনার পিসি এর অনেক কিছু ছিন্ন ভিন্ন হয়ে গেছে ,আর এই নিয়ে আপনি চিন্থিত ,ভাবতেছেন আবার ওএস সেট আপ দিবেন , কিন্তু না ,এই সব কিছুই করা লাগবে না ,জাস্ট একটা ক্লিক করে ,এই সব থেকে মুক্তি পেতে পারেন । আগে দেখে নিন ,ভাইরাস এ আক্রমন হোওয়ার পর উইন্ডোজ এর কি কি নষ্ট হয়ে যেতে পারে ।
যা যা নিস্ক্রয় হতে পারেঃ
Restore F8 safe mode menu
Registry editor
Command console “cmd”
System restore
Start menu Run command
Task manager
Task scheduler
Safe mode
Right click context menu
My computer properties
Folder options
Windows explorer search
start menu search
Reset file and folder attributes
Ms Config
Restore explorer registry key
Re-enable will also edit hosts file
Scan and delete Autorun.inf files
আর এই সব গুলো কে আপনি ফিরে পেতে পারেন , ১এমবির একটি ছোট ইউটিলিটি ব্যাবহার করে ।
Re-Enable Services After Virus Attack
এটি দিয়ে আপনি আপনার হারানো সিস্টেম ফাইল গুলো কে ফিরে পাবেন ।
ডাউনলোড করুন @ Download Link
এমন আরো একটি  ইউটিলিটি হচ্ছেঃ Quick Fix
এইটা দিয়ে যা যা এনবেল করতে পারবেন।
1. Enable Task Manager
2. Enable Registry
3. Enable Folder Options
4. Restore missing run dialog
5. Enable Command Prompt(cmd)
6. Stop My Documents to open at start up
7. Restore Device manager.
8. Fix Delay at start up.
9 Fix Recovery Console
আরো অনেক কিছু ।
ডাউনলোড @ Download link
তাহলে আজ আর নয় ,সবাই ভালো থাকুন, আল্লাহ হাফেয ।

সবাই কেমন আছেন? আশা করি ভালো আছেন। হাঁ যা বলছিলাম, এখন থেকে আপনার কম্পিউটার বাংলায় কথা বলবে। ভাবছেন কি ভাবে?

আসুন দেখে নেই ভয়েস গুলো :

১. কোন ইরোর ম্যাসেজ আসলে বলবেঃ বস সমস্যা আছে।
২. ইউএসবি প্রবেশ করালে বলবেঃ বস ইউএসবি পাইছে, ভাইরাস চেক করে নেন।
৩. ইউএসবি আউট করলে বলবেঃ বস ইউএসবি খুললেন।
৪. কম্পিউটার অফ আউট করলে বলবেঃ আমি কিছুক্ষণের জন্য বন্ধ হচ্ছি।
৫. কম্পিউটার লগ অন করলে বলবেঃ আমি আবারো খুলছি।
ইত্যাদি আরো ভয়েস রয়েছে যেগুলো কমান্ড দেওয়ার সময় বলবে।

এখান থেকে ডাউনলোড করুন

যেভাবে ইন্সটল করবেনঃ

১. প্রথমে Bangla_Voice_Media_System ফাইলটি ওপেন করুন।

২. Install বাটনে ক্লীক করুন।

৩. সিরিয়াল কী 339-998 টাইপ করে দিন।

৪. ভয়েস মিডিয়া অটোমেটিক ইন্সটল হবে।

৫. এবার আপনার কম্পিউটারটি রিষ্টর্ট দিন।

৬. দেখবেন আপনার কম্পিউটার বাংলা ভয়েসে পরিণত হয়ে গেছে।

যদি ভালো লাগে তাহলে অবশ্যই কমেন্টে জানাতে ভুলবেন না।

সবাই ভাল থাকবেন।


Beep-Sound, PC tips & tricks
 
আমরা যখন কম্পিউটারের পাওয়ার বাটন চাপ দিয়ে কম্পিউটার চালু করি তখন মাঝে মধ্যে একেক ধরনের ‘বিপ’ Sound শোনা যায়। বিপ বা শব্দটি মূলত কেসিং তথা মাদারবোর্ডের ভিতর থেকে আসে।
এটি আপনার কম্পিউটার সিষ্টেমের অবস্থা বোঝাতে ব্যাবহৃত হয়। আপনার কম্পিউটারে স্পিকার যুক্ত না’থাকলেও এ’ধরনের শব্দ শুনতে পেতে পারেন। কেননা এর জন্য আপনার মাদারবোর্ডে বিল্টইন স্পিকার যুক্ত করা থাকে। (সকল মডেলের ক্ষেত্রে নয়)
কম্পিউটারের এমন কিছু সমস্যা আছে যা আমরা এই শব্দ শুনে বুঝতে পারি।
অনেকেই, বিশেষ করে নবীন ব্যাবহারকারীরা তাদের পিসিতে এমন শব্দ শুনে বিচলিত হয়ে যান। এই পিসিহেল্পলাইনবিডিতে-ই একজনকে পেয়েছিলাম, কোন এক পোষ্টে তার এই ধরনের একটি সমস্যা লিখেছিলেন।
তো আসুন- জেনে নেই কি ধরনের শব্দ, কোন অর্থ প্রকাশ করে এবং কিভাবে সমস্যা সমাধান করা যায়।
Ω. একটি বিপ অর্থ কেসিংয়ের অভ্যন্তরীন হার্ডওয়্যারের সকল যন্ত্রাংশ সঠিকভাবে সংযুক্ত আছে।
উইন্ডোজে অন্য কোন সমস্যা না থাকলে ঠিকমতো চালু হবে। যদি চালু হতে কোন সমস্যা হয় তবে সিডি রম, হার্ডডিস্ক ড্রাইভ ও মনিটরের সংযোগ একবার চেক করে দেখুন।
Ω. ছোট দুটি বিপ হলে বুঝবেন আপনার পিসিতে কিছু সমস্যা আছে এবং সমস্যাটি সম্পর্কে কিছু তথ্য মনিটরে শো করবে।
Ω. তিন বা চারটি বিপ হওয়ার পর কম্পিউটার চালু হতে যদি সমস্যা হয় তবে আপনার পিসির RAM ঠিকভাবে স্লটে লাগানো কি’না দেখুন। প্রয়োজনে র‌্যামটি খুলে সংযোগ পরিষ্কার করে আবার লাগান।
Ω. ৫টি বিপ হয়ে কম্পিউটার ষ্টার্ট নিতে সমস্যা হলে মাদারবোর্ডের সকল কার্ড যথাযথভাবে সংযুক্ত আছে কি’না দেখে নিন।
Ω. ৬টি বিপ কি-বোর্ড কানেকশান Problem নির্দেশ করে। মাদারবোর্ডের সাথে আপনার কিবোর্ড (USB অথবা PS2) সঠিকভাবে সংযুক্ত আছে কি না খেয়াল করুন।
Ω. ৭টি বিপ হয়ে কম্পিউটার লোড নিতে কোন সমস্যা দেখলে প্রসেসরের সংযোগটা একবার পরীক্ষা করে দেখুন।
Ω. ৮টি বিপ শুনলে অখবা স্ক্রিনে ঠিকভাবে আউটপুট না’পেলে বুঝবেন এবার ভিডিও কার্ড দেখার পালা। সাধারণত ভিডিও কার্ড বা গ্রাফিক্স‌ কার্ডের সংযোগে সমস্যা হলে ৮টি বীপ শোনা যায়।
Ω. ৮-এর পর এবার নিশ্চই ৯ আশা করছেন? :)
কিন্তু ৯টি বিপ সাধারনত তেমন একটা শোনা যায় না। কারন, এটি দিয়ে মাদারবোর্ডের বায়োসের মারাত্ম‌ক সমস্যাকে বোঝানো হয়। আর বায়োসে সমস্যা থাকলে…
Ω. জ্বী, ৯ এর পর ১০টা বীপও আছে। এটি দিয়ে সাধারনত মাদারবোর্ডের সিমোস চীপ (CMOS Chip) অকার্যকর বোঝানো হয়।
যাক, ১০ নম্বর বিপ তো শেষ হলো। এর বাহিরেও আপনি কিছু অন্য ধরনের সংকেতের শব্দ শুনতে পারেন। এবার সেটা নিয়ে লিখছি।
Ω. একটানা ছোট ছোট বিপ হলে বুঝতে হবে পাওয়ার সাপ্লাই বা মাদারবোর্ডে সমস্যা আছে। পিসি ঠিকমত ফাংশন না’ও করতে পারে।
Ω. একটি বড় এবং একটি ছোট বিপ শুনলে বুঝবেন নির্ঘাত RAM এ সমস্যা। সুতরাং…
Ω. একটানা বিপ হতে থাকলেও বুঝবেন আপনার কম্পিউটারের RAM এ সমস্যা আছে।
Ω. একটা বড় ও তিনটি ছোট বিপ হলে বুঝতে হবে গ্রাফিক্স কার্ডে সমস্যা আছে। সংযোগ পরীক্ষা করে দেখতে পারেন।
Ω. এটা একটা বিশেষ ক্লু। কোন বিপ নেই অথচ আপনার কম্পিউটার চালু হচ্ছে’না। এর অর্থ আপনার পিসির পাওয়ার সাপ্লাই বা মাদারবোর্ডে সমস্যা আছে।
তো যাদের কম্পিউটারের মাদারবোর্ডে বিল্টইন স্পিকার যুক্ত করা নেই তারা দুশ্চিন্তা না’করে লাগিয়ে নিন অথবা External Speaker চালু রাখুন।
Click Here.
আর যাদের কাছে এই শব্দটি বিরক্তিকর তারা এটি বন্ধ করে দিতে পারেন।
বন্ধ করার নিয়মঃ
কম্পিউটারের Run অপশনে গিয়ে টাইপ করুন Devmgmt.msc ও Enter কী প্রেস করুন।
মনিটরে ডিভাইস ম্যানেজার চালু হবে।
এবার System Device বের করে এর ভিতর “Non-Plug and play drivers” অপশনটা খুজে বের করে এক্সপান্ড করুন।
ব্যাস, ওর ভিতরে “Beep” অপশন দেখতে পাবেন। এরপর Beep এর উপর রাইট ক্লিক করে Desable ক্লিক করে বেরিয়ে আসুন আর কম্পিউটারকে রিষ্টার্ট দিন।
এরপর থেকে আপনার পিসি আর বিপ’ শব্দ করবে’না।
আচ্ছা… ভালো থাকুন.. আর সবসময় ইতিবাচক চিন্তা করুন।
ধন্যবাদ এত মনযোগ দিয়ে লেখাটি পড়বার জন্য। এটি আপনার কাজে আসলেই আমার এই ব্যায়িত সময় সার্থক।

Tag Cloud